ChannelPadma Privacy Policy

অবৈধ স্থাপনা রক্ষার্থে আ.লীগ কার্যালয়ের সাইনবোর্ড !

অবৈধ স্থাপনা রক্ষার্থে আ.লীগ কার্যালয়ের সাইনবোর্ড !
CHANNEL PADMA bd 2022

অবৈধ স্থাপনা রক্ষার্থে আ.লীগ কার্যালয়ের সাইনবোর্ড !

ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলার চরহাজীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের জমিতে গড়া অবৈধ স্থাপনা রক্ষার্থে স্থানীয় আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সাইনবোর্ড টাঙিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

৪ নং গাজীরটেক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কার্যালয় উল্লেখ করে স্থানীয় একটি মহল সাইনবোর্ড লাগিয়ে উচ্ছেদ থেকে ঘরটি বাঁচাতে এপথ বেছে নিয়েছেন বলে স্থানীয়দের অভিযোগ।

গত ২৬ জুলাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানজিলা কবির ত্রপার নেতৃত্বে উক্ত বিদ্যালয় মাঠে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা ৪০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। এতে বিদ্যালয়টি ফিরে পেয়েছে বেদখলীয় ৫৩ শতাংশ জায়গা জুড়ে খেলার মাঠ সহ শহীদ মিনার।

কিন্তু এ উচ্ছেদ অভিযান চলাকালে বিদ্যালয় মাঠের পশ্চিম পাশের সীমানায় চরহাজীগঞ্জ বাজারের প্রধান সড়ক সংলগ্ন একটি স্থাপনার গায়ে আ.লীগ কার্যালয়ের সাইনবোর্ড দেখে যাচাই বাছাইয়ের স্বার্থে ঘরটির উচ্ছেদ কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়।

ওই একই ঘরে বিগত দিনে ‘গাজীরটেক অটোরিক্সা সমবায় সমিতি লিঃ’ নামক অফিসের কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়েছে। আবার একই স্থাপনার গায়ে হঠাৎ করে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সাইনবোর্ড দেখে বিভ্রান্তিতে পড়ে প্রশাসন। বিষয়টি নিয়ে এলাকার বিভিন্ন মহলের মাঝে আলোচনা সমালোচনা চলছে।

জানা যায়, সম্প্রতি আইন-শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভায় প্রধান অতিথি ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন উক্ত স্থাপনাটির ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে সুষ্ঠু তদন্তর মাধ্যমে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশনা দেন।

ওই সভায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানজিলা কবির ত্রপা বলেন, পাঁচ দফা নোটিশ দেওয়ার পরও বিদ্যালয়ের জায়গায় উঠানো ঘরগুলো সরানো হয় নাই।

অভিযানের মাত্র তিন দিন আগে স্থানীয় একটি মহল স্থাপনার গায়ে ৪ নং গাজীরটেক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ কার্যালয় উল্লেখ করে সাইনবোর্ড লাগিয়ে স্থাপনাটি উচ্ছেদ মুক্ত রাখতে অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের স্বার্থেই স্থাপনাটি উচ্ছেদের ব্যাপারে সময় নেওয়া হয়েছে।

সরেজমিনে বিদ্যালয় মাঠ ঘুরে দেখা যায়, প্রায় সব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে বিদ্যালয়ের মাঠ ও শহীদ মিনার উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে।

শুধুমাত্র মাঠের পশ্চিম সীমানায় একটি ঘরে গাজীরটেক ইউনিয়ন আ.লীগ কার্যালয়ের সাইনবোর্ড সম্বলিত স্থাপনা রয়েছে। এছাড়া আরো দুইটি ঘর রয়েছে।

ওই ঘরগুলোর মালিক ও উপজেলা আ.লীগের যুগ্ম আহবায়ক আহসানুল হক মামুন জানান, সাইনবোর্ড সম্বলিত ঘরটি দীর্ঘকাল ধরে আ.লীগের অফিস ছিল। ওই ঘরে বসেই স্থানীয় আ.লীগের সমস্ত কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়েছে।

আর অনেক বছর আগে তিনি স্কুল ম্যানেজিং কমিটির কাছ থেকে জমি লিজ নিয়ে উক্ত তিনটি দোকান ঘর নির্মান করেছেন বলেও জানান।

চরহাজীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আজাদ আবুল কালাম বলেন, বিগত দিনে আ.লীগের নেতৃস্থানীয়রা এলাকায় এসে ওই ঘরে বসে মিটিং করছেন এটা সত্য, তাই বলেতো ঘরটা আওয়ামী লীগের অফিস নয়।

কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ এলাকায় এসে বিভিন্ন স্কুল মাঠে জনসভা করে থাকেন, তাতে করে কি মাঠটি কোনো দলের হয় ? আর স্কুলের জমি লিজ প্রদানের বিষয়টি তিনি অবগত নন বলে জানান।

উক্ত স্থাপনার ভিতরে ঢুকে দেখা যায়, আ.লীগ কার্যালয়ের সাইনবোর্ডের পাশাপাশি ‘গাজীরটেক ইউনিয়ন অটোরিক্সা সমবায় সমিতি লিঃ’ নামক আরেকটি সাইনবোর্ড রয়েছে। ওই সমবায় সমিতির নামে সরকারিভাবে রেজিষ্ট্রেশন নেওয়া হয়েছে।

উক্ত সমবায় সমিতির সভাপতি ও সাবেক ইউপি সদস্য শেখ শহীদুল ইসালাম জানান, উক্ত স্থাপনার পুরো ঘরটি গাজীরটেক ইউনিয়ন অটোরিক্সা সমবায় সমিতির নিজস্ব অর্থায়নে গড়া। আমি সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি।

বর্তমানে সমিতির কার্যক্রম জোড়ালোভাবে চালু না থাকলেও আগে সমিতির যাবতীয় কার্যক্রম উক্ত অফিস থেকেই পরিচালিত হতো। সম্প্রতি কে বা কারা উক্ত ঘরে আ.লীগের সাইনবোর্ড লাগিয়েছে তা সম্পর্কে আমি কিছুই জানি না।

প্রসঙ্গত, ১৯৪৮ সালে উপজেলার চরহাজীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়টি ২ একর ৪৬ শতাংশ জায়গাজুড়ে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর ২০০১ সালে পদ্মা নদীর ভাঙনের অনেকাংশ বিলীন হয়।

পরে বিদ্যালয়টি স্থানান্তর করে অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হলে দখলদাররা একের পর এক দোকান ঘর উঠিয়ে বিদ্যালয়ের খেলার মাঠ সহ শহীদ মিনার দখল করে রেখেছিল।

দীর্ঘ ২০ বছর পর বিদ্যালয়ের জমি দখলমুক্ত করলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানজিলা কবির ত্রপা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.