ChannelPadma Privacy Policy

চেয়ারম্যান পুত্র’র হত্যাকারীদের গ্রেফতার দাবীতে বিক্ষোভ

চেয়ারম্যান পুত্র’র হত্যাকারীদের গ্রেফতার দাবীতে বিক্ষোভ
CHANNEL PADMA bd 2022

ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার ঢেউখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মিজানুর রহমান বয়াতির শিশু পুত্রকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনার সাথে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে এলাকাবাসী। চেয়ারম্যান পুত্র’র হত্যাকারীদের গ্রেফতার দাবীতে বিক্ষোভ

সোমবার (০৬ জুন) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলা পরিষদ ও থানার সামনের সড়কে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। পরে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি উপজেলা সদরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ন সড়ক প্রদক্ষিন করে

মানববন্ধন কর্মসূচী চলাকালে বক্তব্য রাখেন, আ.লীগ নেতা সায়েদিদ গামাল লিপু, আব্দুস সাত্তার, ঢেউখালী ইউপি চেয়ারম্যান মো. মিজানুর রহমান বয়াতি প্রমূখ।

গত ১৮ মে বিকালে সদরপুর উপজেলা সদরে ইউপি চেয়ারম্যানের বাড়িতে প্রবেশ করে তার শিশু সন্তান আল-রাফসান (৯) কে কুপিয়ে হত্যা করে এরশাদ মোল্যা নামের এক ব্যক্তি। পরে টিঅ্যান্ডটি টাওয়ারের ওপর থেকে লাফিয়ে এরশাদ মোল্যা আত্মহত্যা করেন। চেয়ারম্যান পুত্র’র হত্যাকারীদের গ্রেফতার দাবীতে বিক্ষোভ

চেয়ারম্যানের নিহত শিশু সন্তানের নাম আল রাফসান (৯)। রাফসান স্থানীয় একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল। ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমানের দুই ছেলের মধ্যে ছোট রাফসান।

এদিকে ঘটনার ১৩ দিন পর ঢেউখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মিজানুর রহমান বয়াতি বাদি হয়ে সদরপুর থানায় ৯জনের নাম উল্লেখ করে এবং কয়েকজন অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। এ পর্যন্ত কোন আসামীকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

ঢেউখালী ইউপি চেয়ারম্যান মো. মিজানুর রহমান বয়াতি বলেন, নিজে বাদি হয়ে সদরপুর থানায় ৯জনের নাম উল্লেখ করে এবং কয়েকজন অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছি। এ পর্যন্ত কোন আসামীকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। দ্রুত আসামীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার দাবী জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, হত্যাকান্ডে জড়িত এরশাদ মোল্যা নামে এক ব্যক্তি ঘটনার দিনই টাওয়ার থেকে লাফ দিয়ে আত্মহত্যা করেন। এরশাদকে যারা ইন্ধন দিয়েছে তাদের নামে মামলা করেছি, কিন্তু এখনও কেউ গ্রেফতার হয়নি। আমাকে হত্যার উদ্দ্যেশেই ওই দিন আমার বাড়িতে হামলা চালানো হয়। কিন্তু আমি বাড়িতে না থাকায় বেঁচে গেছি, কিন্তু আমার শিশু পুত্রকে হত্যা করা হয়েছে। আমার স্ত্রীকে কুপিয়ে জখম করা হয়। সে এখনও সুস্থ্য হয়নি, ঢাকার নিউরোসাইন্স হাসপাতালে চিকিতসাধীন রয়েছে। গ্রেফতার দাবীতে বিক্ষোভ

সদরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুব্রত গোলদার বলেন, ঢেউখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মিজানুর রহমান বয়াতি বাদি হয়ে ৯জনের নাম উল্লেখ করে এবং কয়েকজন অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। শিশু রাফসান হত্যা মামলার আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশী অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.