ChannelPadma Privacy Policy

পাঁচ টাকার কয়েন দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ

পাঁচ টাকার কয়েন দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ
CHANNEL PADMA bd 2022

ফরিদপুরের সালথায় পাঁচ টাকার কয়েন দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে সাত বছর বয়সী এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। এঘটনায় শনিবার (০২ জুলাই) দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে আটক করেছে থানা পুলিশ।

এদিকে দুপুরে শিশুটিকে উদ্ধার করে পুলিশী হেফাজতে নিয়ে মেডিকেল পরিক্ষার জন্য ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে সালথা উপজেলার গট্টি ইউনিয়নে।

আটককৃত অভিযুক্ত ব্যক্তির নাম মো. দেলোয়ার হোসেন কুমকুম মিয়া (৫০)। তিনি গট্টি ইউনিয়নের সিহংপ্রতাব পশ্চিমপাড়ার মৃত জুলফিকার আলী মিয়ার ছেলে। অভিযুক্ত দেলোয়ারের স্ত্রী ও দুই ছেলে সন্তান রয়েছে। তারা সবাই ঢাকায় থাকেন বলে জানা গেছে। বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যে এলাকায় চাঞ্চল্যর সৃষ্টি হয়েছে।

শিশুটির পরিবার ও স্থানীয়রা জানায়, শিশুটি স্থানীয় একটি মাদ্রাসায় পড়াশোনা করে। মাদ্রাসায় যাওয়া-আসার সময় অভিযুক্ত দেলোয়ার শিশুটির হাতে পাঁচ টাকার কয়েন ধরিয়ে দিয়ে বাড়ির পাশে একটি গরুর ফার্মে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে। গত কয়েকদিনে এভাবে তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করা হয় বলে শিশুটি নিজে সাংবাদিকদের কাছে জানায়। একপর্যায়ে বিষয়টি স্থানীয়রা টের পেলে শুক্রবার রাতে অভিযুক্ত দেলোয়ারকে আটক করে মারধর করার পর ছেড়ে দেওয়া হয়।

পরে স্থানীয় মাতুব্বররা ঘটনাটি মিমাংসা করে দিতে চাইলে তাতে প্রথমে রাজি না হওয়ায় শিশুটির মায়ের গলায় ছুরি ঠেকিয়ে ভয়ভীতি দেখায় অভিযুক্ত দেলোয়ারের লোকজন। একপর্যায়ে ভয়ে মিমাংসার বিষয়টি মেনে নিতে বাধ্য হয় শিশুটির পরিবার। খবরটি স্থানীয় সংবাদকর্মীরা জানতে পেয়ে পুলিশকে অবগত করে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শিশুর বক্তব্য শুনে স্থানীয়দের সহযোগিতায় শনিবার দুপুরে অভিযুক্ত দেলোয়ারকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

সালথা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শেখ সাদিক বলেন, শিশু ধর্ষণের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযুক্ত দেলোয়ার হোসেন কুমকুম মিয়াকে আটক করা হয়েছে। পাশাপাশি ওই শিশুটিকে উদ্ধার করে পুলিশী হেফাজতে তাকে মেডিকেল পরিক্ষা করার জন্য ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে পরিবারের পক্ষ থেকে এখনও মামলা করা হয়নি। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

administrator

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.