ChannelPadma Privacy Policy

মধুখালী-মাগুরা রেলপথের কাজ সময় মত শেষ হচ্ছে না

মধুখালী-মাগুরা রেলপথের কাজ সময় মত শেষ হচ্ছে না
CHANNEL PADMA bd 2022

মধুখালী-মাগুরা রেলপথের কাজ সময় মত শেষ হচ্ছে না : নির্ধারিত সময়ের মধ্যে শেষ হচ্ছে না মধুখালী টু মাগুরা ভায়া কামারখালী ব্রডগেজ রেল লাইন প্রকল্প।

তবে সময় বাড়ানো হলেও প্রকল্প মূল্য বাড়বে না বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী ও পঞ্চগড়-২ আসনের সংসদ সদস্য মো. নূরুল ইসলাম সুজন।

ওই প্রকল্পের কাজ পরিদর্শনকালে মঙ্গলবার (০২ আগস্ট) দুপুর তিনটার দিকে কামারখালী বাজার সংলগ্ন নির্মাণাধীন কামারখালী রেল স্টেশনের সামনে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে এ কথাগুলো বলেন রেলমন্ত্রী।

রেল মন্ত্রী বলেন, চার বছর মেয়াদী এ প্রকল্প গ্রহণ করা হয় গত ২০১৮ সালে। শেষ হওয়ার কথা ছিল চলতি বছরের নভেম্বরে।

তবে জমি অধিগ্রহজনিত জটিলতা, এলাকার বাস্তবতা এবং সর্বোপরি করোনার প্রাদুর্ভাবের কারনে কাজ সময়মত শুরু করা যায়নি। এ কাজ শুরু হয়েছে প্রকল্প শুরুর অনেক পরে ২০২১ সালের ২৩ মে।

রেলমন্ত্রী বলেন, সময়মত কাজ শেষ করা না গেলে এ কাজের সময় বাড়ানো হবে, তবে এজন্য প্রকল্প ব্যয় বাড়াবে না সরকার।

তিনি বলেন, তবে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান প্রকল্প ব্যায় বাড়ানোর জন্য দাবি করেছেন। সেটা সরকার বিবেচনা করতে পারে।

রেলমন্ত্রী বলেন, এ প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে দেশের আভ্যন্তরীণ ব্যয় দিয়ে। তাই বিশ^ বাজারে নির্মাণ সামগ্রীর দাম কতটা কি বেড়েছে তা সরকারের বিবেচনায় নেওয়ার সুযোগ নেই।

মন্ত্রী বলেন, এ কাজের অংশ হিসেবে দুটি নতুন রেলস্টেশন নির্মাণ করা হচ্ছে। এর একটি মাগুরাতে এবং অপরটি ফরিদপুরের কামারখালীতে।

রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম বলেন, মধুমতি নদীর উপর রেল সেতু নির্মাণ কাজ এগিয়ে যাচ্ছে। ইতিমধ্যে পাইলিং এর কাজ শুরু হয়েছে। পাইলিং এর বাকি কাজ বর্ষার পর শেষ করা হবে।

এ প্রকল্পের অধিনে নতুন রেল লাইন স্থাপনের পাশাপাশি পুরনো রেল লাইন সংস্কার করা হচ্ছে।

এ সময় মাগুরা-১ আসনের সংসদ সদস্য সাইফুজ্জামান শিখর, মীর আক্তার কনস্ট্রাকশন লিমিটেড এর সত্ত্বাধিকারী মীর নাসির হোসন, মধুখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আশিকুর রহমান চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান মুরাদুজ্জামান মুরাদ, প্রকল্প পরিচালক মোঃ আসাদুল হক সহ রেলওয়ের উর্ধতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, ৮৭৮ কোটি টাকা ব্যায়ে এ প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। এর মধ্যে ৪৩০ কোটি টাকা ব্যায়ে ১৯. ৯ কিলোমিটার ব্রডগেজ রেলপথ নির্মাণ করছে কাজী নাবিল আহমেদের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ক্যাসেল কনস্ট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেড। এ পর্যন্ত এ কাজের ৩০ ভাগ বাস্তবায়িত হয়েছে।

অপরদিকে মধুমতী নদীর উপর দুই হাজার ৪১২ মিটার দৈর্ঘ্যরে রেল সেতু নির্মাণ কাজ করা হচ্ছে ৪৪৮ কোটি টাকায়।

এ কাজের ঠিকাদারি পেয়েছে মীর আক্তার কনস্ট্রাকশন লিমিটেড। এ পর্যন্ত এ কাজের ২৭ ভাগ বাস্তবায়িত হয়েছে

মধুখালী-মাগুরা রেলপথের কাজ সময় মত শেষ হচ্ছে না :

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.