ChannelPadma Privacy Policy

সাংবাদিক মুজাহিদের উপর হামলার ঘটনায় মামলা

সাংবাদিক মুজাহিদের উপর হামলার ঘটনায় মামলা
CHANNEL PADMA bd 2022

সাংবাদিক মুজাহিদের উপর হামলার ঘটনায় মামলা :

ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গায় সাংবাদিক মুজাহিদুল ইসলাম নাঈম এর উপর হামলার ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।

মঙ্গলবার (০২ জুলাই) সকালে মুজাহিদুল ইসলাম বাদি হয়ে দুইজনকে আসামি করে মামলাটি দায়ের করেন। মামলা নম্বর-০৩।

মামলায় আলফাডাঙ্গা পৌর মেয়র সাইফুর রহমান সাইফারের আপন ছোট ভাই মো. জাপান মোল্যাকে ১ নম্বর আসামি করা হয়েছে।

মামলায় আরো কয়েকজনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে। এদিকে মামলার ২ নম্বর আসামি পারুল বেগমকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

মামলা সূত্রে জানা যায়, আলফাডাঙ্গার রাজধানী পরিবহনের কাউন্টারে বাসের টিকেট নিয়ে কাউন্টার মাস্টার জাপানের সাথে মুজাহিদের প্রতিবেশি উপজেলার গোপালপুর গ্রামের মোসলেম খানের ছেলে রমিজের কথাকাটাকাটি হয়।

রমিজ বিষয়টি দৈনিক ঢাকা টাইমস এর নিজস্ব প্রতিবেদক ও আলফাডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক মুজাহিদুল ইসলাম নাঈমের সহযোগীতা চান।

সোমবার বেলা দেড়টার দিকে মুজাহিদ ঘটনাস্থলে পৌঁছালে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে জাপান ও তার সহযোগীরা দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র এবং লাঠিসোটা নিয়ে মুজাহিদের উপর হামলা চালায়।

স্থানীয়রা আহত অবস্থায় তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে নিলে সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কর্মরত চিকিৎসকরা ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন।

বিকেল সাড়ে ৫টা দিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য মুজাহিদকে ফরিদপুর মেডিকেল থেকে ঢাকা মেডিকেলে স্থানান্তর করা হয়।

মুজাহিদ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নিচতলার ১০১ নম্বর ওয়ার্ডের ১০ নম্বর বেডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে জানা গেছে।

আহত সাংবাদিক মুজাহিদুল ইসলাম জানান, আলফাডাঙ্গা পৌরসভার মেয়র সাইফুর রহমান সাইফারের ভাই জাপান ও তার পাঁচজন-ছয়জন সহযোগীরা হঠাৎ করে হামলা চালায়।

তারা (হামলাকারিরা) লোহার রড, স্ট্যাম্প, দেশিয় অস্ত্র-সস্ত্র দিয়ে পেটানো হয়। এসময় স্থানীয়রা হামলাকারিদের হাত থেকে আমাকে রক্ষায় এগিয়ে এলে তাদের ওপর চড়াও হয় তারা। এতে বেশ ক’জন আহত হন।

তিনি বলেন, হামলার সময় ২ নম্বর আসামি পারুল বেগম তার গলায় ওড়না দিয়ে প্যাচ দিলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন।

এরপর আসামিরা তার উপর দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র পিটিয়ে নিলাফুলা জখম করেন। এ সময় মুজাহিদের পকেটে ৮৫ হাজার টাকাও নিয়ে যায় তারা।

আহত মুজাহিদ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীনের বিষয়টি নিশ্চিত করেন আলফাডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সভাপতি সেকেন্দার আলম। তিনি বলেন, সহকর্মী মুজাহিদের উপর হামলার ঘটনায় সোমবার বিকেলে প্রেসক্লাবে তাৎক্ষনিক গনমাধ্যমকর্মীরা নিন্দা জানিয়েছেন।

বুধবার সকালে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের সামনে আসামিদের গ্রেপ্তার ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। তিনি এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেছেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আলফাডাঙ্গা থানার উপপরিদর্শক মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, মামলার ২ নম্বর আসামি পারুল বেগমকে গ্রেপ্তার করে মঙ্গলবার আদালতে পাঠানো হয়েছে। অন্যদের গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যহত রয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.