রবিবার, ২৯ অগাস্ট ২০২১, ০৮:১৫ অপরাহ্ন

ট্রলার ডুবিতে নিখোঁজ দুই শিক্ষকের সন্ধান মেলেনি

পদ্মা ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ২৭ আগস্ট, ২০২১

৩৬ ঘন্টা পার হলেও ফরিদপুরে পদ্মা নদীতে ট্রলার ডুবির ঘটনায় নিখোঁজ হওয়া দুই শিক্ষকের সন্ধান পাওয়া যায়নি। শুক্রবার (২৭ আগস্ট) বিকাল পর্যন্ত নিখোঁজ হওয়া দুই শিক্ষকের কোনো খোঁজ মেলেনি কোথাও।

নিখোঁজ ওই দুই শিক্ষক হলেন ফরিদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের সহকারি শিক্ষক আলমগীর হোসেন (৪০) ও সারদা সুন্দরী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের সহকারি শিক্ষক আজমল হোসেন শেখ (৪২)।

এদিকে নিখোঁজ হওয়া দুই শিক্ষকের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম। নিখোঁজ আলমগীর হোসেনের ছোট ভাই সুমন দাবী করেন, আমার ভাইয়ের দেহটা আমরা যাতে পেতে পারি, স্থানীয় প্রশাসন যেন সেই ব্যবস্থা করে।

বুধবার (২৫ আগস্ট) বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে ফরিদপুর সদরের ডিক্রিরচর ইউনিয়নের মদনখালীর মাথায় নাজির বিশ্বাসের ডাঙ্গী এলাকায় একটি পন্টুনের সাথে ধাক্কা খেয়ে ডুবে যায় ট্রলারটি।

ওই ট্রলারে ফরিদপুর শহরের বিভিন্ন বিদ্যালয়ের ১৪জন শিক্ষক ও ট্রলারে মাঝিসহ মোট ১৫ জন ছিলেন। এর মধ্যে শিক্ষক ও মাঝি সহ ১৩ জনকে উদ্ধার করা সম্ভব হলেও দুই শিক্ষক পানির তোড়ে ভেসে যায়।

ট্রলারটিতে করে বুধবার বিকেলে নৌ ভ্রমণে বের হন শিক্ষকরা। বিকেল ৪টার দিকে ট্রলারটি ফরিদপুর সদরের চর মাধবদিয়া ইউনিয়নের খলিল মন্ডললের হাট থেকে শহরতলীর ধলার মোড়ের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। ট্রলারটি বিকেল ৫টার দিকে ডিক্রিরচর ইউনিয়নের নাজির বিশ্বাসের ডাঙ্গী মদনখালীর মাথায় একটি পন্টুনে গিয়ে থামে। সেখানে আসরের নামাজ পরে শিক্ষকরা পুণরায় ট্রলারে উঠে যাত্রা শুরু করলে ট্রলারে ইঞ্জিন বন্ধ হয়ে যায়। এ সময় ট্রলারটি স্রোতের টানে মুহূর্তের মধ্যে ডুবে গিয়ে পন্টুনের নিচে চলে যায়।

ফরিদপুর দমকল বাহিনীর সিনিয়র স্টেশন অফিসার সুভাষ বাড়ৈ জানান, বৃহস্পতিবার সকালে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের পাটুরিয়া থেকে পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট একটি ডুবুরি দল উদ্ধার অভিযানে অংশ নিয়েছে। তারা সকাল ৮টা থেকে প্রচন্ড স্রোতের মধ্যেও কাজ শুরু করে। তবে এখন পর্যন্ত নিখোঁজদের উদ্ধার করতে পারেনি।

এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর